surmavoice24.com
সিলেটশুক্রবার, ১৪ই জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, বিকাল ৩:২৮
আজকের সর্বশেষ সবখবর

কোম্পানীগঞ্জে আগ্রাসী মাদক চোরাচালানে বাধা বেরসিক পুলিশ


মার্চ ৩১, ২০২৪ ২:০৪ পূর্বাহ্ণ
Link Copied!

আসন্ন ইদকে সামনে রেখে সাম্প্রতিক সময়ে ব্যাপরোয়া হয়ে উঠেছে সিলেটের কোম্পানীগঞ্জ উপজেলার মাদক কারবারিরা। এমন তথ্যের ভিত্তিতে থানা পুলিশের নজরদারি ও মাদক উদ্ধার কার্যক্রম বেশ লক্ষনীয়। সীমান্তবর্তী উপজেলা কোম্পানীগঞ্জের বিভিন্ন পয়েন্ট হয়ে ভারতীয় মাদকের চালান মজুদ হচ্ছে ভোলাগঞ্জ, পাড়ুয়া, টুকেরবাজার, তেলিখাল, গৌড়িনগর, সুন্দ্রাউড়া, খাগাইল, বর্ণি ও দলইরগাঁও এলাকায়। মাদক কারবারিরা সেলস পয়েন্ট হিসেবে এসব এলাকাকে দীর্ঘদিন যাবত ব্যবহার করে আসছে। এসব পয়েন্ট থেকে সুযোগবুঝে সিলেট ও এর বাহিরে পৌছে দিচ্ছে মাদকের চালান। পুলিশ, র‍্যাব ও জেলা গোয়েন্দা বিভাগের অভিযানে বিভিন্ন সময় মাদকের চালান উদ্ধার ও কারবারিদের আটক করলেও থামছেনা মাদকের অবৈধসব বিপনন কার্যক্রম। গত এক সপ্তাহে রণিখাই ইউনিয়ন বিট পুলিশ কর্তৃক মাদকের বিরোদ্ধে সাঁড়াশি অভিযান বিশেষ ভাবে লক্ষনীয়। গত শনিবার ৩০ মার্চ গভীর রাতে উপজেলার হিংরা বিলপাড় থেকে ২৬৫ বোতল ভারতীয় নিষিদ্ধ ফেন্সিডিল উদ্ধার করেন দক্ষিণ রণিখাই ইউনিয়ন বিট পুলিশ কর্মকর্তা অজয় চন্দ্র রায়। এ সময় ১জন কারবারিকে আটক করলে আরও ২/৩ জন মাদক কারবারি পালিয়ে যায়।

আটককৃত ব্যক্তি হারুন মিয়া উরফে তারুন মিয়া (৫৫) গোয়াইনঘাট উপজেলার গুজারকান্দি (রুস্তমপুর) গ্রামের মৃত্যু আব্দুর রহিমের পুত্র। এ ঘটনায় ২ জন এজাহার নামীয় এবং অজ্ঞাতনামা ২/৩ জনকে আসামী করে কোম্পানীগঞ্জ থানায় মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে একটি নিয়মিত মামলা রুজু করা হয়। যার মামলা নং-২২।

এর আগে গত রোববার ৬৮ বোতল ভারতীয় নিষিদ্ধ ফেন্সিডিল উদ্ধার ও একজনকে আটক করেন বিট কর্মকর্তা অজয় রায়। বিভিন্ন সূত্রে জানা যায়, সীমান্তবর্তী ছনবাড়ি, নারাইনপুর, ভোলাগঞ্জ, কালাইরাগ,নাজিরগাঁও, মাঝেরগাঁও, ও তুরং সীমান্ত দিয়ে প্রবেশ করছে ভারতীয় বিভিন্ন ব্র‍্যান্ডের মদ ও ফেন্সিডিল। আমদানি নিষিদ্ধ এসব মাদক নিরাপদ বিপননের লক্ষে নিরাপদ পয়েন্ট হিসেবে উপজেলার গুরুত্বপূর্ণ কয়েকটি পয়েন্টকে বেছে নিয়েছে। পুলিশ ও র‍্যাব সূত্রে জানা যায়, বাংলাদেশে আনীত বেশিরভাগ মাদকের চালান আটক হচ্ছে ভোলাগঞ্জ, টুকেরবাজার, তেলিখাল, বর্ণি, গৌড়িনগর ও খাগাইল এলাকা থেকে। এসব এলাকায় রয়েছে মাদক কারবারিদের বিশাল সিন্ডিকেট।

সাম্প্রতিক সময়ে একাধিক মাদকের চালান আটককারী এসআই অজয় রায়ের প্রতি সন্তষ্ট প্রকাশ করেন দক্ষিণ রণিখাই ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান ইকবাল হোসেন ইমাদ। তিনি বলেন, এলাকায় মাদকের ব্যাপক ছড়াছড়ি। যুব সমাজকে রক্ষা করতে মাদক কারবারিদের শিকড়সমেত উৎপাটন করা জরুরি।

এসআই অজয় রায় জানান, মাদকের চালান আটকে শক্তিশালী একটি গ্রুপ তৈরি করেছি। সকলের চৌকস ভূমিকায় প্রতিবারই সফল হচ্ছি।

কোম্পানীগঞ্জ থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) গোলাম দস্তগীর জানান, আমার কাছে একাধিক মাদক কারবারির তথ্য এসেছে। যেসব পয়েন্ট দিয়ে মাদকের চালান বাংলাদেশে প্রবেশ করছে সেসব পয়েন্টে পুলিশের নজরদারি বৃদ্ধি করা হয়েছে।

কোন খবর নিয়ে আপত্তি বা অভিযোগ থাকলে সংশ্লিষ্ট নিউজ সাইটের কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ করার অনুরোধ রইলো। বিনা অনুমতিতে এই সাইটের সংবাদ, আলোকচিত্র অডিও ও ভিডিও ব্যবহার করা বেআইনি।